কেরানীগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক দলের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে দফায় দফায় হট্টগোল হাতাহাতি

175

 কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ঢাকার কেরানীগঞ্জ উপজেলা দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবকদলের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন গতকাল শনিবার বেলা ১১ টায় মীর্জাপুর গয়েশ্বর রায়ের নিজ বাড়ি পাশে ফাঁকা জায়গায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন চলাকালে দফায় দফায় হট্টগোল হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সোহেল রানা সভাপত্বিত্বে কেরানীগঞ্জ উপজেলা দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোজাদ্দেদ আলী বক্তব্য দেন এবং তিনি বলেন, হট্টগোল করলে কিন্তু বহিস্কার করা হবে। এ সময় মঞ্চে বসা ছিল বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তার সামনে হট্টগোল হয়। পরে থেমে যায়। এরপর মঞ্চের সন্নিকটের সড়কের উপর স্বেচ্ছাসেবক দলের দুইগ্রুপে মধ্যে হট্টগোল বেঁধে যায়। বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোজাদ্দেদ আলী বাবুর হস্তক্ষেপে শান্ত হয়। এ দুই দফা হট্টগোলের আগে মঞ্চের পিছন অংশে গয়েশ্বর রায়ের ভবনের পাশেও স্বেচ্ছাসেবদলের দুইগ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি, তর্ক বিতর্ক ও হট্টগোল বাধে। সম্মেলনে প্রধান অথিতি হিসেবে বক্তব্যে বিএনপির স্থানীয় কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, স্বেচ্ছাসেবক দল খুবই ভাল। তবে একজন অপরজনের মধ্যে মিল নেই। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন মাষ্টারসহ প্রমূখ। স্বেচ্ছাসেবক দলের আগের কমিটির সভাপতি সোহেল রানা ও সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহম্মেদ শাহীনকে পুনরায় সভাপতি- সাধারণ সম্পাদক ঘোষনা করা হয়। স্বেচ্ছা সেবক দলের নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক একাধিক নেতা বলেছেন, কাউকেই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হতে দেয়নি। আপনারা সাংবাদিকরা তো স্বচোক্ষে দেখেছেন, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নেই। আশা করি বুঝতে পারছেন। পকেট কমিটি। নামের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন। প্রার্থী না দেয়ার ব্যাপারে নিষেধ করায় হট্টগোল হয়েছে এ কারণে।