কেরানীগঞ্জে ষষ্ঠ দিনে রেকর্ড ৯৯ মামলা, দেড় লাখ টাকার অধিক জরিমানা

670

কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ চলমান লকডাউনের ষষ্ট দিনে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনা বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ৯৯টি মামলায় ১০৫৩০০ টাকা জরিমানা ও একজনকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে কেরানীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন।

আজ ২৮ জুলাই (বুধবার) দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সানজিদা পারভীন তিন্নি আব্দুল্লাহপুর বাজার ও হাসনাবাদ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৪৯ টি মামলায় ১৭টি প্রতিষ্ঠান এবং ৩২ জন ব্যক্তিকে মোট চুয়ান্ন হাজার পাঁচশত টাকা জরিমানা প্রদান করেন।

একই সময় মডেল থানার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইকবাল হাসান জিনজিরা ও কালিন্দী ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ৪১টি মামলায় ২২৯০০ টাকা জরিমানা ও একজনকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন। চলমান লকডাউনের একদিনে সর্বাধিক ৯৯টি মামলার বাকি ৯ টি মামলায় ২৭৯০০ টা আদায় করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আমিত দেবনাথ।

সরকারি আদেশ অমান্য করে বাহিরে বের হওয়া, অননুমোদিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখাসহ নানা কারণে এ মামলা প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। রেকর্ড সংখ্যক মামলার দিনেও সকাল থেকে প্রয়োজনে অপ্রয়োজনে ঘর হতে বের হয়েছে প্রচুর মানুষ। গণ পরিবহন না থাকায় যথারীতি আজও রাস্তা দখলে রেখেছে অটো সিএনজি। আর রাস্তায় যাত্রী থাকায় ইনকামও যে কোন সময়ের তুলনায় ভালো বলে জানিয়েছে একাধিক রিক্সা চালক।

লকডাউন ঢিলেঢালা হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেবনাথ বলেন, সকাল থেকে পুলিশ, বিজিবি ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্যদের নিয়ে মাঠে আছে উপজেলা প্রশাসন। জেল-জরিমানা ও সচেতনতামূলক কার্যক্রমও পরিচালনা করা হচ্ছে। কেরানীগঞ্জ একটি ঘনবসতি ও শিল্পাঞ্চল হওয়া এ বিশাল সংখ্যক মানুষকে ঘরে রাখাও মুশকিল। তবে উপজেলা প্রশাসন অপ্রাণ চেষ্টা করছে মানুষকে নিরাপদে রাখতে। তিনি সকলকে সরকারি বিধিনিষেধ মেনে চলার পাশাপাশি করোনা মহামারি থেকে বাচতে ঘরে থাকার অনুরোধ করেন। অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।