কেরানীগঞ্জে টিসিব পাণ্য বাহিরে বিক্রি, দোকানদারসহ আটক-৩, ডিলার পলাতক।

229

ঢাকার চোখ ডেস্কঃ ঢাকার কেরানীগঞ্জে ন্যাযমূল্যে বিক্রির জন্য বরাদ্দকৃত টিসিবির পন্য কার্ডধারীদের না দিয়ে রাতের আধারে দোকানে বিক্রি করতে এসে ধরা পড়েছে আব্দুল কাইয়ুম(৩৩) ও আশ্রাফ আলী(৩০) নামে দুই ব্যক্তি। তাদের দুই জনের একজন মালবাহী পিকাপ ড্রাইভার ও অন্যজন হেলপার বলে দাবী স্বজনদের। পরে অভিযান চালিয়ে দোকানদার এরশাদকেও গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে এখনো পর্যন্ত টিসিবি ডিলার নেওয়াজ আলীকে গ্রেফতার করা যায়নি। এসময় হাতেনাতে আটক করা হয় ২৭০ লিটার তেল, ৩০০ কেজী ডাল, ৩০০ কেজী ছোলা ও ৩০০ কেজি চিনিসহ পণ্য বহনকারী একটি পিকাপ। ।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় এক মেম্বার জানান, ৬ এপ্রিল (বুধবার) দিবাগত রাত ৯ টার দিকে রোহিতপুর বাজার ভূমি অফিসের সামনে একটি পিকাপ থেকে সন্দেহজনক ভাবে কিছু মালামাল দ্রুত এরশাদ ষ্টোর নামে একটি দোকানে নিয়ে যাচ্ছিলো। তাদের দেখে আমাদের সন্দেহ হলে গিয়ে দেখি ট্রাক ভর্তি টিসিবির পণ্য। পরে জনতার সাহায্যে পুলিশ এসে দুইজনকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। তবে মূল হোতা পালিয়ে গেছে।

আটক ড্রাইভার আব্দুল কাইয়ুম জানান, তারা বাস্তা ইউনিয়নের দড়িগাও এলাকা থেকে ভাড়ায় রোহিতপুর বাজারে ভাড়ায় এসেছেন । এর মালিক নেওয়াজ আলী। তারা জানতোনা এগুলো এগুলো সরকারি পণ্য।

তবে নেওয়াজ আলীর এক স্বজন আমার সংবাদকে জানিয়েছে এটা নেওয়াজের ভাগিনা আশিকের কাজ। আশিকই তার মামা নেওয়াজ আলীর নামে ডিলার নিয়েছে। নেওয়াজ এব্যাপারে কিছুই জানেনা।

বাস্তা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশকর আলী বলেন, গত ৫ এপ্রিল (মঙ্গলবার) ইউনিয়নের দুটি ডিলারের মাধ্যমে তিনশত কার্ডদারীকে দুই লিটার করে তেল, দুই কেজী করে ডাল,চিনি ও ছোলা দেওয়ার দেওয়ার কথা থাকলেও তা দেওয়া হয়নি। ডিলার আমাকে জানিয়েছে মালামাল এখনো আসেনি। মালামাল আটকের ব্যপারে এখনই শুনলাম।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবু সালাম মিয়া জানান, রমজান মাসে মানুষ যাতে সাশ্রয়ী মূল্যে খাদ্যসামগ্রী পায় এজন্য প্রধানমন্ত্রী ভর্তুকি দিয়ে সাশ্রয়ী মূল্যে পণ্য সহায়তা দিচ্ছেন৷ আর কিছু অসাধু লোক এনিয়ে কারসাজি করছে,কালোবাজারে বিক্রি করছে। টিসিবির পন্যসহ পুলিশ হাতে নাতে দুই জন ও পরে দোকানদারকেও গ্রেফতার করেছে। এব্যাপারে তদন্ত কর্মকর্তা এস আই ইমরান বাদী হয়ে ডিলার ও দোকানদারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেছে। এখনো পর্যন্ত তিনজনকে আটক করা হয়েছে। ডিলার নেওয়াজ আলীকেও আটকের চেষ্টা চলছে।