কেরানীগঞ্জে টাকার লোভ দেখিয়ে ৮ বছরের শিশুকে  ধর্ষণ, বৃদ্ধা আটক

976
কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ কেরানীগঞ্জ মডেল থানার বরিশুর এলাকার আট বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আনোয়ার হোসেন (৫০) নামের এক রিকশা চালককে গ্রেপ্তার পুলিশ।
গতকাল রাতে পুলিশ অভিযোগ পাওয়ার পর অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের অভিযুক্ত আনোয়ারকে গ্রেফতার করে।
শিশুটি বরিশুর আঞ্চলিক প্রাইমারি স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

ধর্ষিতা মেয়ের পিতা আঃ রাজ্জাক বলেন, আমি আমার স্ত্রী ও আমার মেয়ে রাবেয়া ( ৮ )কে নিয়ে বরিশুর জলিলের ভাড়া বাড়ীতে বসবাস করি । আমার মেয়ে বরিশুর আঞ্চলিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩ য় শ্রেণীর ছাত্রী । ধর্ষক রিকসা চালক আনোয়ার একই বাসায় পাশের রুমে ভাড়াটিয়া হিসাবে বসবাস করে । আমি নৌকা চালাইয়া জীবিকা নির্বাহ করি এবং আমার স্ত্রী নাসিমা বাসা বাড়ীতে কাজ করে । আমি নৌকা চালানাের জন্য প্রতিদিন সকাল ১০.০০ ঘটিকার সময় বাসা হইতে বের হই এবং রাত অনুমান ১২.০০ ঘটিকার দিকে বাসায় ফিরি । আমার স্ত্রী বাসা বাড়ীতে কাজের জন্য সকাল ০৭.০০ ঘটিকার সময় বাসা হইতে বের হয় এবং সন্ধ্যায় ফিরে আসে । আমার মেয়ে রাবেয়া বাসায় অবস্থান করে । প্রতিদিনের ন্যায় ১৮/০৫/২০২১ খ্রিঃ তারিখ আমি এবং আমার স্ত্রী কাজের উদ্দেশ্যে বাসা হইতে বের হই । ঐ দিন দুপুর অনুমান ০২.৩০ ঘটিকা হইতে ০৩.০০ ঘটিকার মধ্যে আমার নাবালিকা মেয়ে রাবেয়া ( ৮ ) কে ১০০ টাকার লােভ দেখাইয়া ফুসলাইয়া বিবাদী তাহার রুমে ডেকে নিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে । উক্ত বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য আমার মেয়েকে বিভিন্ন হুমকি প্রদান করে । আমার মেয়ের ডাক চিৎকার শুনিয়া দোতলার ভাড়াটিয়া বৃষ্টি বেগম , পাশের বাড়ীর ভাড়াটিয়া সুখী আগাইয়া আসিলে বিবাদী মােঃ আনােয়ার হােসেন পালাইয়া যায় । পরবর্তীতে আমার মেয়ের অন্যমনস্ক ও শারিরীক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়লে মেয়ের নিকট হইতে ঘটনার বিস্তারিত জানিয়া আত্নীয় স্বজনদের সহিত আলোচনা করে মামলা করেছি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( কেরানীগঞ্জ সার্কেল) শাহাবুদ্দিন কবির জানান, শিশুটি বাবার একজন নৌকা চালক এবং মা বাসা বাড়িতে কাজ করে। আর রিকশা চালক আনোয়ার তাদের পাশের বাসায় বসবাস করতেন, তারা নানা নাতি সম্বোধন করতো, শিশুটিকে ১০০ টাকার লোভ দেখিয়ে ফুসলিয়ে ধর্ষণ করেন।
এ ঘটনায় শিশুটি বাবার কেরানীগঞ্জ মডেল থানা একটি নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন।